Alipurduar; যুব তৃনমুল সাধারন সম্পাদককে খুনের হমকি

Alipurduar News;  ফোন করে হুমকি আলিপুরদুয়ারের যুব তৃণমূলের সাধারন সম্পাদক দেবজিৎ পালকে। তবে তিনি রাজিনিতিতে জগতে নুতুন নন।

২০০৭ সাল থেকে তিনি রাজনীতি করে আসছেন দিদির অনুগামি হয়ে কাজ করে গিয়েছে। তবে তিনি জানিয়েছেন, রাজনীতি করলে কারোর সাথে আমার কনোরকম শুত্রুতা নেয়।

তবে কে বা কারা এই হুমকি দিয়েচ্ছে? কেনই বা তাঁরা হুমকি দিয়েছে?

কোনো এক অজানা নাম্বার থেকে ফোন করে তাকে মেরে ফেলার হুমকি দেয় তৃনমূলের এই নেতাকে।

তিনি Alipurduar-এর জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সাধারন সম্পাদক দেবজিৎ পাল।

তাকে খুনের হুমকি দেওয়ায় তার পরিবারের সকলেই নিরাপত্তাহিনতায় ভুগতে দেখা যাচ্ছে।

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিজেপিদের নানা ভাবে কটাক্ষ করতে দেখা যাচ্ছে।

এই ঘটনাটি ঘটতে দেখা যায়, ২৪ আগাস্ট আলিপুরদুয়ারের অন্তর্গত ফালিকাটার জাটেশ্বর এলাকায়।

সেই দিন রাত ১২ টা সময় একটি অজানা নাম্বার থেকে হোয়াটস অ্যাপে কল আসে।

সুত্রের মাধ্যমে জানা গিয়েছে, দীর্ঘদিন রাজনীতি সাথে জড়িত ও যুব তৃনমুলের কংগ্রেসের সাধারন সম্পাদকও।

জানা এই দিন রাতে হোয়াটস অ্যাপে কল করে হিন্দিতে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে দু দিনের মধ্যে মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া হয়।

দেবজিৎ পাল বারাবার তার পরিচয় জানতে চায়। কিন্তু কোনরকম ভাবে তার পরিচয় বলেনি, নিজের পরিচয় আজ্ঞাত রেখে ফোনে হুমকি দিতে থাকে।

তিনি হুমকি দেওয়ার ফোন পাওয়ার পরই পরের দিন সকালে স্থানীয় ফালাকাটা থানায় অভিযোগ দায়ের করে।

এই ফোন কলের পরই থেকেই তার পরিবারের সকলেই চিন্তার মধ্যে আছেন। অভিযোগ দায়ের পর পুলিশ রিতিমতো এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

তার দীর্ঘ দিনের রাজনীতি জীবনে আগে কখনি এরকম হয়নি বলে জানিয়েছেন। তার কোনো শুত্রু নেয় বলেই তিনি জানিয়েছেন।

তবে কে বা কারা এই ঘটনাটি ঘটিয়েছে, তার কোনোরকম সন্দেহজনক ব্যাক্তির নাম তিনি বলেনি।

তার এবিষয়ে কে বা কারা এই কাজ করতে পারে কোনও ধারনা নেয় বলে জনিয়েছেন।

আবার অপরদিকে, দেবজিতের খুনের হুমকি ঘটনাকে কেন্দ্র করে নানা কটাক্ষ করতে দেখা যাচ্ছে।

বিজেপির সহসভাপতি জয়ন্ত রায় এই ঘটনার প্রসঙ্গে বলেন, ‘ তবে আবার প্রমানিত হতে দেখা গেলো যে শাসক দলের কোনো নিরাপত্তা নেই এই পশ্চিমবঙ্গে।

নুতুন দলের গঠনকে কেন্দ্র করে ওদের মধ্যে গোষ্ঠীদন্দ লেগেই থাকতে দেখা যায়।

এটা হয়তো গোষ্ঠীদন্দের কারনই তাকে খুনের হুমকি দিয়েছে।  তিনি এও বলেন যে, রাজ্যে কোনো নিরাপত্তা নেই।’

 

error: Content is protected !!