Cat: সামান্য আলোতেই বিড়াল চোখ জ্বলজ্বল করে কেন?

Cat: আমরা সবাই দেখে থাকি, অল্প আলোতেই বিড়ালের চোখ জ্বলজ্বল করতে ।বিশেষত রাত্রের দিকে এই ঘটনাটি ভালো করে বোঝা যাই।তবে প্রথমবার কেউ যদি এই  ঘটনাটি লক্ষ্য করে ভয় পেয়ে যাবে।এর কারণ আমরা অনেকেই জানি না ও জানতে চাই না।তবে এটি শুধু বিড়াল নয়,অনেক পুশুর মধ্যে দেখা যায় কি?

তবে আমাদের অনেকের মনে প্রশ্ন জাগে,এটি মানুষের হয় না কেন?।এর তফাৎ একটাই বিড়ালের চোখের উপর “ট্যাপেটাম লিউসিডাম” নামে একটা ধরনের আবরণ থাকে।
এই আবরণ থাকার কারণে চোখের মধ্যে আলো পড়লে এল প্রতিফলন করে দেয়। আর মানুষের চোখে এই পর্দা থাকে না।
বিড়ালের(cat) চোখে এই পদার্থের একটা আধা স্বচ্ছ উত্তাল আয়না থাকে যেটা চোখের মধ্যে পড়া আপতিত  আলোর কিছু অংশ অপসারি রশ্মিগুচ্ছ আকারে পতিফলিত করে দেয়।
সেই অপসারিত আলোর কারণেই  আমরা বিড়ালের চোখ জ্বলজ্বল করতে দেখতে পাই।
বিড়ালের চোখের এই অপসারী রশ্মি গুচ্ছ যে অপসারি সুঙ্কু তৈরি করে তার বাইরে থেকে কিন্তু জ্বলন্ত চোখ দেখা যাবে না ।এর ফলেই বিড়ালের রাত্রে শিকার খুঁজতে সুবিধা হয়।

কেন বিড়াল বা কুকুরের চোখ রাতে জ্বলজ্বল করে কেন?

রাতে বিরালের চোখে আলাদা করে কোনো আলো তৈরি হয়নি। বিড়ালের চোখে  ট্যাপেটাম লিউসিডাম” নামে একধরনের একটা মেমব্রেন বিশেষ আবরন থাকে।
যখন কোনো আলো তাদের চোখে পড়ে, তখন এই টাপেটামে আলো প্রতফলিত হয়ে কিছুটা বর্ধিত হয়।
এই আলোর প্রতিফলনের জন্য বিড়ালের চোখ জ্বলজ্বল করে।
এই টাপেটাম আলোর প্রতিফলনের জন্য বিড়াল রাতে হালাকা আধারেও দেখতে পায়।
এছাড়া বিড়ালের ছখের চোখের আরেকটি সুবিধা হল, তাদের চোখ মুখমণ্ডলের থেকে অনেকটা সামনের দিকে থাকে।
তাদের চোখ সামনের দিকে থাকে বলেই, এক চোখের দৃষ্টি অন্য চোখে এসে পড়ে।
যার কারনেই তাঁরা রাতে ইঁদুর ধরতে সবিধা হয়। তাদের অতিবেগুনি রশ্মি সংবেদনশীল হওয়ায়, তাঁরা মানুষের থেকে অনেক দৃষ্টি শক্তির অধিকারি হয়ে থাকে।
এরা অন্ধকারে দেখতে পাওয়ার জন্য এদের নিশচর প্রাণী বলা হয়।
তবে কতটা জ্বলজ্বল করবে? তা নির্ভর করে চোখের অক্ষিপটে অবস্থিত রক্তের পরিমানের উপর।
যাদের চোখে অক্ষিপটে রক্তের পরিমান বেশি থাকে, সেই সব প্রাণীর চোখ আগুনের মত লাল হয়ে জ্বলজ্বল করতে দেখা যায়।
যাদের কম পরিমান রক্ত থাকে, তাদের চোখ হালাকা হলদেটে ভাব লক্ষ্য করা যায়।
error: Content is protected !!